1. admin@gmail.com : দৈনিক আমার সময় : দৈনিক আমার সময়
  2. : admin :
বড় ভায়রা মৃত্যুর ২মাস পর সেই মোটরসাইকেলেই প্রাণ গেল প্রবাসী ছোট ভায়রার - দৈনিক আমার সময়

বড় ভায়রা মৃত্যুর ২মাস পর সেই মোটরসাইকেলেই প্রাণ গেল প্রবাসী ছোট ভায়রার

বিশেষ  প্রতিনিধি,গাজীপুর
    প্রকাশিত : শুক্রবার, ২ জুন, ২০২৩
গাজীপুরের শ্রীপুরের রাজাবাড়ি ইউনিয়নের ধলাদিয়া গ্রামে রাজেন্দ্রপুর- কাপাসিয়া সড়কে দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত প্রবাসী আকরাম হোসেন (৪০) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। শুক্রবার রাতের প্রথম প্রহরের সোয়া ১২টার দিকে তার মৃত্যু হয়। এর আগে গত শনিবার বিকেল সাড়ে তিনটায় সড়ক দুর্ঘটনাটি ঘটে।
নিহত আকরাম হোসেন শ্রীপুর উপজেলার গোসিংগা ইউনিয়নের সাভারচালা গ্রামের মোঃ ফাইজুদ্দিনের ছেলে। তিনি দীর্ঘদিন ধরে সিঙ্গাপুর থাকতেন। দেড় মাস আগে ছুটিতে বাংলাদেশে এসেছিলেন।
নিহতদের স্বজনরা জানান, মোটরসাইকেলে চড়ে আকরাম ও তার ছেলে মোঃ আবির (৫) এবং রাজাবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের ৩নং ওয়ার্ড মেম্বার আব্দুর রউফসহ বেড়াতে গিয়েছিলেন। দুর্ঘটনায় আকরাম ও তার ছেলে আবির গুরুতর আহত হলে তাদের উদ্ধার করে রাজধানীর উত্তরার শিন শিন জাপান হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আকরাম হোসেন মারা যান।
আকরাম হোসেনের আত্মীয় মোঃ মিনহাজ জানান, রাজধানীর উত্তরার শিন শিন জাপান হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আকরাম হোসেনের মৃত্যু হয়। একই হাসপাতালে তার ছেলে আবির চিকিৎসা নিয়ে মঙ্গলবার বাড়িতে ফিরে। তিনি ঘটনার বর্ণনায় বলেন, ছেলে আবির ও আরেক স্বজনকে নিয়ে রাজাবাড়ি ইউনিয়নের ধলাদিয়া গ্রামে বসবাসরত বড় ভাই মিলনের বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিলেন আকরাম। ফেরার সময় তিনি নিজেই মোটরসাইকেল চালাচ্ছিলেন। এ সময় একটি ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে তিনি ও তার ছেলে আবির  আহত হন। তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায় স্থানীয় লোকজন।
মিনহাজ আরো জানান, গত ৩০ মার্চ একই মোটরসাইকেলে দুর্ঘটনায় আকরামের ভায়রা ভাই সাবেক সেনা সদস্য মোঃ আব্দুল জলিল মারা যান। মেয়েকে স্কুলে দিয়ে ফেরার পথে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের আনসার রোড এলাকায় ওই দুর্ঘটনার শিকার হন তিনি। এরপর থেকে তাঁর ঘরেই মোটরসাইকেলটি পড়েছিল। প্রবাসী আকরাম সেই মোটরসাইকেল নিয়ে বেড়াতে গিয়েই এমম দুর্ঘটনার শিকার হন। দুর্ঘটনার সময় মোটরসাইকেলের পেছনে থাকা আহত ওয়ার্ড মেম্বার আব্দুর রউফ বলেন, আমাদের মোটরসাইকেল ধলাদিয়া কলেজের সামনে আসার পর গতি কমিয়ে দেওয়া হয়। বাজারে যাওয়ার পর একটি অটোরিকশা আকস্মিক ভাবে সড়কে ঘুরিয়ে দেয়। এতে মোটরসাইকেলের সাথে সংঘর্ষ বাঁধে। এসময় আমরা রাস্তায় ছিটকে পড়ি। এতে আকরাম মাথায় আঘাত পান। পরে স্থানীয়রা আমাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়।
শ্রীপুর থানার কর্তব্যরত পুলিশ অফিসার এস আই আজমল করিম দৈনিক আমার সময়কে বলেন, ওইদিনের দুর্ঘটনার ঘটনায় কেউ থানা পুলিশকে অবগত করেনি। নিহতদের স্বজনদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ও উর্ধতন কর্মকর্তাদের পরবর্তী আইনগত পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন
© All rights reserved © dailyamarsomoy.com