1. : admin :
ঢাকা জেলা  মোটরযান ওয়ার্কশপ মেকানিক শ্রমিকদের বার্ষিক বনভোজন উদযাপন - দৈনিক আমার সময়

ঢাকা জেলা  মোটরযান ওয়ার্কশপ মেকানিক শ্রমিকদের বার্ষিক বনভোজন উদযাপন

নাজমুল ইসলাম মন্ডল 
    প্রকাশিত : শনিবার, ২ মার্চ, ২০২৪
জীবন বাজি রাখবো, অচল গাড়ি সচল করব।এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ঢাকা জেলা মোটরযান ওয়ার্কশপ মেকানিক ইউনিয়নের, উত্তরা শাখার উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হলো ২০২৪ বনভোজন। 
(পহেলা মার্চ) শুক্রবার, বঙ্গবন্ধু সেতু সংলগ্ন যমুনা রিসোর্টে ঢাকা জেলার মোটরযান ওয়ার্কশপ মেকানিক ইউনিয়নের সাত শতাধিক শ্রমিকদের নিয়ে জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হলো বার্ষিক বনভোজন ও মিলন মেলা-২০২৪।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ মোটরযান মেকানিক ফেডারেশন এর কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি এডভোকেট মাহবুবুর রহমান ইসমাইল। সহ-সভাপতি, মো: হজরত আলী। সাধারণ সম্পাদক, মো: জসিম উদ্দিন। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, মো:জহির আলী।
ঢাকা জেলা মটরযান ওয়ার্কশপ মেকানিক ইউনিয়নের সভাপতি মো: রমজান আলী। উত্তরা শাখার সাধারণ সম্পাদক, রুহুল আমীন মানিক সহ সংগঠনের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এসময় শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি এডভোকেট মাহবুবুর রহমান ইসমাইল বলেন,আমরা শ্রমিকদের নেয্য অধিকার আদায়ে সব সময় পাশে আছি এবং থাকব। আমরা চাই প্রতিটি শ্রমিক সচলভাবে জীবন যাপন করুক। তাদের অধিকার আদায়ে সরকারের বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনগুলোর সাথে ইতিমধ্যে শ্রমিকদের ন্যায্য অধিকার আদায়ে আমরা কাজ করছি। সরকারের কাছে আমাদের আবেদন বাংলাদেশ মোটরযান মেকানিক ফেডারেশনের শ্রমিকদের, জীবনমান উন্নয়নের লক্ষ্যে, সরকারের সুনির্দিষ্ট নীতিমালা প্রণয়ন করে, মোটরযান ওয়ার্কশপ মেকানিক কে শিল্প হিসাবে ঘোষণা করার দাবি জানাচ্ছি। আমাদের শ্রমিকদের জন্য রেশন কার্ড করে দেওয়ার জোর দাবি জানাচ্ছি।
উপস্থিত শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে  সভাপতি বক্তব্যে মো: রমজান আলী বলেন,আমরা শ্রমিকদের  অধিকার আদায় কাজ করে যাচ্ছি। আমরা সরকারের কাছে দাবি জানাই, অর্থনীতির চাকাকে সচল করার জন্য মোটরযান শ্রমিকরা সবচেয়ে বেশি অবদান রাখে কিন্তু তারা সবচেয়ে বেশি অবহেলিত। সরকারের কাছে আমরা আবেদন জানাই প্রতিটি জেলায় বাস টার্মিনালের কাছে মোটরযান মেকানিক ওয়ার্কশপ ইপিজেড স্থাপনের দাবি জানাচ্ছি। আমাদের দাবি না মানা হলে রমজানের ঈদের পরে আমরা দুর্বার আন্দোলনের মাধ্যমে আমাদের দাবি আদায়ের লক্ষে কঠোর কর্মসূচি দিতে  বাধ্য হব।
শ্রমিকদের কল্যাণে রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বরাদ্দ দেওয়ার জোর দাবি করছি, যেন প্রতিটি শ্রমিক স্বাচ্ছন্দে জীবন যাপন করতে পারে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন
© All rights reserved © dailyamarsomoy.com