স্ব-পরিবারে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে আওয়ামীলীগকে নিশ্চিহ্ন করতে চেয়েছিল নরপশু ঘাতক দল

লোহাগাড়ায় শোক দিবসের আলোচনা সভায় বক্তারা

মো. এরশাদ আলম, লোহাগাড়া চট্টগ্রাম
ত্যাগ-শ্রম ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের রাজনীতির প্রতিক আওয়ামীলীগকে নিশ্চিহ্ন করার জন্য ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের কালো রাতে নরপশু ঘাতক দল বঙ্গবন্ধুকে স্ব-পরিবারে হত্যা করেছিল। বঙ্গবন্ধুর বর্ণাঢ্য সংগ্রামী জীবনের আদর্শে গড়া আওয়ামী রাজনীতিকে নিশ্চিহ্ন করার জন্য পাষন্ড ঘাতকেরা এহেন হৃদয়বিদারক হত্যাকান্ড ঘটিয়েছিল কিন্তু পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বর্তমানে আওয়ামী রাজনীতির অগ্রযাত্রা পুরো বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত। যে কারণে জাতির পিতার সপ্ন সোনার বাংলা গঠনে জননেত্রী শেখ হাসিনা বিশ্ব দরকারে বর্তমানে একজন সফল প্রধানমন্ত্রী।

৩০ আগস্ট সোমবার সকালে উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আলহাজ্ব মোস্তফিজুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় বক্তারা উপরোক্ত মন্তব্য করেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খোরশেদ আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সালাউদ্দিন হিরু’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মোসলেম উদ্দিন আহমদ এমপি।

প্রধান বক্তা ছিলেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুফিজুর রহমান।

বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির দপ্তর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম আমিন ও চট্টগ্রাম-১৫ সাতকানিয়া লোহাগাড়া আসনের সংসদ সদস্য প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুউদ্দিন নদভী।

অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সাতকানিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ সভাপতি এম.এ মোতালেব সিআইপি, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এডভোকেট একেএম সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার আলহাজ্ব আকতার আহমদ সিকদার, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ সদস্য ও বিশিষ্ট আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ্ব আনোয়ার কামাল, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর হায়দার চৌধুরী রুটন, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক বিজয় কুমার বড়ুয়া, লোহাগাড়া প্রেসক্লাব সভাপতি নুরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদসহ ৯ইউনিয়নের চেয়ারম্যানবৃন্দ এবং জেলা, উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, শ্রমিকলীগ, তাঁতীলীগ, কৃষকলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথি বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কর্ণধার তথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করতে ১৫ই আগস্টের শোককে শক্তিতে পরিনত করে আওয়ামী রাজনীতির পতাকা তলে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

এছাড়াও লোহাগাড়ার আওয়ামী রাজনীতির অঙ্গনে সকল ভেদাভেদ ভুলে সবাইকে একই সারিতে অবস্থান গ্রহণ করতে দেখে আগামী দিনে লোহাগাড়ায় আওয়ামী রাজনীতির উজ্জল ভবিশ্যত নিয়ে আশাবাদী বলে অভিমত ব্যক্ত করেন তিনি।

অপরদিকে প্রধান বক্তা মুফিজুর রহমান এবং বিশেষ অতিথিবৃন্দ যথাক্রমে ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, আমিনুল ইসলাম আমিন ও সাংসদ প্রফেসর ড.আবুরেজা মুহাম্মদ নেজামউদ্দিন নদভী লোহাগাড়ায় আওয়ামী রাজনীতিতে নতুন দিগন্তে সূচনা হওয়ায় গভীর সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং আগামীতে সকলেই একযোগে দলীয় স্বার্থে কাজ করবেন বলে ঘোষনা দেন।

উল্লেখ্য: আলোচনা সভা শেষে ত্রাণ বিতরণ ও মেজবানের আয়োজন করা হয়।