সাতকানিয়া-লোহাগাড়ায় করোনায় অসহায় ও মৃত সৌদি প্রবাসীদের পরিবারে আমিনুল আমিনের ঈদ উপহার

জাহাঙ্গীর আলম,বিশেষ প্রতিনিধিঃ চট্টগ্রামের সাতকানিয়া-লোহাগাড়ায় প্রাণঘাতী করোনায় অসহায় সৌদি প্রবাসীদের পরিবার, করোনায় সৌদিয়ায় মৃত প্রবাসীদের পরিবার, সংখ্যালঘুদের পরিবার ও সাতকানিয়া সদর ইউনিয়নের অসহায় ৭৫০ পরিবারের মাঝে  বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিনের ঈদ উপহার বিতরণ করা হয়েছে ।
শুক্রবার (২২ মে) বিকেল ৪টায় সাতকানিয়ার বারদোনাস্থ আমিনুল ইসলামের গ্রামের বাড়ী থেকে এসব ঈদ উপহার সমুহ বিতরণ করা হয়। বিতরণকৃত ঈদ উপহারের মধ্যে রয়েছে লাচ্ছা সেমাই, কুলসন সেমাই, তৈল, পেঁয়াজ, চিনি, চাল ও  দুধ ।
এসব ঈদ উপহার বিতরণ কার্যক্রমে উপস্থিত থেকে তদারকি করেছেন আমিনুল ইসলাম আমিনের চাচা নুরুল ইসলাম, নুরুল কবির, সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক এস এম আজিজ, স্থানীয় ইউপি সদস্য ও আওয়ামী লীগ নেতা মো: সেলিম উদ্দিন, আক্তার কামাল পারভেজ, নুরুল আলম, ছাত্রলীগ নেতা মো : ফয়সাল, জাহেদ ও এমরান।
অসহায় সৌদিয়া প্রবাসীর ১৫০ পরিবার, সৌদিয়া করোনায় মৃত ২৫ পরিবার, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ৪০ পরিবার ও সাতকানিয়া সদর ইউনিয়নের ৪৭০ অসহায় পরিবারসহ মোট ৭৫০ পরিবারে আজ ঈদ উপহার বিতরণ করা হয়।
জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন কর্মী হিসেবে প্রিয় নেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে চলমান করোনার সংকটময় মুহুর্তে আমার প্রাণ প্রিয় সাতকানিয়া-লোহাগাড়ার বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের ঘরে মানবিক উপহার পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করেছি। এটি আমার ব্যাক্তিগত সামর্থ্যের মধ্যে ক্ষুদ্র প্রয়াস মাত্র। দেশের এ সংকটময় মুহুর্তে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের পাশে থাকতে পেরে আমি নিজেকে গর্ববোধ করছি।
উল্লেখ্য, দেশে প্রাণঘাতী করোনা সংক্রমণে লকডাউন ঘোষণার পর থেকেই চট্টগ্রামের সাতকানিয়া-লোহাগাড়া দুই উপজেলায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন ব্যাক্তিগত অর্থায়নে ৭৭৫০ অসহায় পরিবারে খাদ্য  সামগ্রী বিতরণ করছেন। এদের মধ্যে লকডাউনে  ঘরবন্দী হতদরিদ্র, দিনমজুর, মধ্যবিত্ত, নিন্ম মধ্যবিত্ত, আওয়ামী লীগের অসচ্ছল নেতাকর্মী, দলের নিহত নেতাকর্মীদের পরিবার, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের অসচ্ছল নেতাকর্মীদের পরিবার, করোনা আক্রান্তের পরিবার, অসহায় জেলে পরিবার, হিন্দু-বৌদ্ধদের পরিবার, মুক্তিযোদ্ধাদের পরিবার, মাধ্যমিকের সহকারী শিক্ষক ও প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষক, ইমাম-মুয়াজ্জিন, সিএনজি চালক, বাস-ট্রাক-লরী চালক ও হেলপার এবং গণ পরিবহনের চালক-হেলপারের পরিবার রযেছেন।