সরকারি জমি দখলসহ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে বাঁধা,পৌর কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে মামলা!

আলফাজ সরকার আকাশ, শ্রীপুর(গাজীপুর)) থেকেঃ-    সরকারি জমি দখল করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ, প্রশাসনের উচ্ছেদ অভিযানে বাঁধা, অশালীন ভাষায় গালিগালাজ ও গায়ে হাত তুলাসহ একাধিক অভিযোগে গাজীপুরের শ্রীপুর পৌর কাউন্সিলর মোঃ হাবিবুল্লাহ-সহ দুইজনের নামে মামলা দায়ের করেছে উপজেলা প্রশাসন।

২২ মে রবিবার শ্রীপুর পৌর ভূমি অফিসের উপসহকারী কর্মকর্তা মোঃ আরিফুল্লাহ বাদী হয়ে শ্রীপুর মামলাটি দায়ের করেন।

মামলা সুত্রে জানা যায়, ২২ মে পৌর এলাকার বেড়াইদেরচালা গ্রামে সরকারের জমিতে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করা হচ্ছে এমন সংবাদে ওই দিন সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারজানা নাসরীন। এসময় তার সাথে ছিলেন, পৌর ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা আরিফুল্লাহ ও শ্রীপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) এস আই আলা উদ্দিন। যেখানে পৌর তফসিলের অধীনে ১নং খাস খতিয়ান ভুক্ত সিএস-১০৫৮ ও আরএস- ৬৯৭৩ দাগের ৪৮ শতাংশ জমি সরকারের। সেখানে কিছু জমিতে মসজিদ রয়েছে। আর বাকী ৩২ শতাংশ জমিতে অবৈধ উপায়ে ঘর নির্মাণ করছিলেন পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ হাবিবুল্লাহ ও রত্না নামের এক নারী। কয়েক দিন পূর্বে সরকারি ভাবে নোটিশ দিয়ে অবৈধ স্থাপনা সরানোর জন্য বলা হলেও রাতের অন্ধকারে কাজ চালিয়ে আসছিলেন তারা।পরে অবৈধ দখলে থাকা সরকারি জমিতে হাবিবুল্লাহর ১০ টি ঘরসহ ২০টি স্থাপনা ভেঙ্গে দেয় উপজেলা প্রশাসন। অবৈধ স্থাপনা সরানোর সময় হাবিবুল্লাহ প্রশাসনের লোকদের অশালীন ভাষায় গালিগালাজ ও গায়ে হাত তুলতে এগিয়ে আসে।

শ্রীপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারজানা নাসরীন জানান, নোটিশ দেয়ার পরও তিন দিন আগে আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখতে অনুরোধ করেছিলাম। প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও কাজ চালু করায় ওই সকল অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেয়া হয়েছে। এসময় হাবিবুল্লাহ নামের একজন সরকারি কাজে বাঁধা ও অশালীন ভাষায় গালিগালাজ করেছে। উর্দ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।

এ বিষয়ে বক্তব্য নেয়ার প্রয়োজনে পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ হাবিবুল্লাহ মুঠোফোনে একাধিক বার ফোন দিলেও তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

মামলা নথিভুক্ত হওয়ার এক সাপ্তাহ হলেও কোন আসামী গ্রেফতার না হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শ্রীপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) এস আই আলা উদ্দিন জানান, ঘটনার পর থেকে আসামিরা পলাতক রয়েছে। আসামি ধরতে বিভিন্ন স্থানে খোঁজ নেয়া হচ্ছে।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লিয়াকত আলী জানান, আসামীদের ধরতে পুলিশের অভিযান নিয়মিত পরিচালনা করা হচ্ছে।

ভিডিওঃ-