শ্রীপুরে মোবাইলের দোকানে অভিনব কায়দায় চুরি! মার্কেট ম্যানেজারসহ গ্রেফতার-৩

আলফাজ সরকার আকাশ,শ্রীপুর(গাজীপুর) থেকেঃ-গাজীপুরের শ্রীপুরে ডিবি রোডে নরুল ইসলাম খাঁন কমপ্লেক্সের ইউনাইটেড সেন্টারে দুর্ধর্ষ চুরির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় মার্কেট ম্যানেজার ও দুজন নৈশ্য প্রহরীসহ তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রাতে ইউনাইটেড সেন্টার বিকাশ ও মোবাইল ফোনসেট বিক্রয় প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী স্থানীয় ব্যবসায়ী খন্দকার মাসুদ রানা দোকানে দুর্ধর্ষ এ চুরির ঘটনা ঘটে।

এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী বাদী হয়ে শ্রীপুর মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করলে রবিবার তা মামলা আকারে গ্রহন করা হয়।

আটককৃতরা হলো- কুমিল্লার মেঘনা থানার সোনাকান্দা গ্রামের মোঃ আঃ বাতেন এর ছেলে (মার্কেট ম্যানেজার) মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান (৩৭), চাঁদপুর জেলার হাইমচর থানার পশ্চিম চরকৃষ্ণপুর গ্রামের মোঃ আহছান উল্লাহ ছেলে মোঃ ফারুক (২৭), কুমিল্লা জেলার চান্দিনা থানার অম্বরপুর গ্রামের মোঃ সুলতান মিয়ার ছেলে মোঃ দুলাল মিয়া (৩১)।

দোকান মালিক ও মামলা সুত্রে জানা যায়, ইউনাইটেড সেন্টারের বিকাশ ও মোবাইল ফোনসেট বিক্রয় প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী স্থানীয় ব্যবসায়ী খন্দকার মাসুদ রানা দীর্ঘদিন যাবত নূরুল ইসলাম খাঁন কমপ্লেক্সে ব্যবসা করে আসছেন। প্রতিদিনের ন্যায় ১৮ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ৯ টার দিকে দোকান মালিক দোকানে তালা লাগিয়ে নিজ বাসায় চলে যায়। ১৯ সেপ্টেম্বর অনুমান সকাল ১০ টার সময় মাসুদের ভাতিজা- সাদেক মোহাম্মদ সিয়াম (২২) দোকান খুলতে এসে দোকানে ভিন্ন তালা লাগানো দেখে বিষয়টি মাসুদকে ফোনের মাধ্যমে জানায়। দোকান মালিক মাসুদ দ্রুত মার্কেটে এসে মালিক কর্তৃপক্ষকে অবহিত করে মার্কেটের অন্যান্য দোকানদার ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের সামনে দোকানে লাগানো নতুন তালা গ্র্যান্ডিং মেশিনের মাধ্যমে কেটে দোকান খুলে দেখতে পায় দোকানের বিভিন্ন মালামাল এলোমেলো, ক্যাশ বাক্স গুলো ভাঙ্গা। পরে শ্রীপুর থানা পুলিশের সহায়তায় দোকানের হিসাব মিলিয়ে দেখে দোকানের ক্যাশ বাক্সে থাকা নগদ ২ লক্ষ ৪৬ হাজার ৭ শত ৩০ টাকা, রিচার্জ কার্ড ও বিভিন্ন ব্যান্ডের ৬৭ টি স্মার্ট ফোনসহ সর্বমোট ১২ লক্ষ ৭৪ হাজার ৫ শত ৩ টাকার মালামাল চুরি হয়।

এ ব্যাপারে দোকান মালিক খন্দকার মাসুদ রানা জানান, বর্তমানে দেশের করোনা পরিস্থিতিতে ব্যবসা পরিচালনা করতে হিমশিম খাচ্ছি। এই মুহুর্তে দোকানে চুরি আমি মানুষিক ভাবে ভেঁঙে পরেছি। আমার সব কিছু শেষ হয়ে গেল।
এ ব্যাপারে মার্কেট মালিক নুরুল ইসলাম খাঁনের মুঠোফোন

একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেনি।

শ্রীপুর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) গোলাম সারোয়ার জানান, ঘটনায় মামলা হয়েছে, তিন জনকে আটক করে গাজীপুর আদালতে প্রেরণ করা হয়ছে। চুরি যাওয়া মালামাল উদ্ধারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে।

উল্লেখ্য, মার্কেট প্রতিদিন রাত অনুমান ১০ টা হইতে পরের দিন সকাল অনুমান ৯ টা পর্যন্ত মার্কেটের কর্মরত ম্যানেজার ও সিকিউরিটি গার্ডদের তত্ত্বাবধানে থাকে। এ সময়ের মধ্যে মার্কেটে কোন ব্যবসায়ী বা দোকানদারসহ কেউ মালিকের অনুমতি ছাড়া প্রবেশ ও বাহির হইতে পারে না। এমতাবস্থায় এ দুর্ধর্ষ চুরির ঘটনাটি ঘটে।