পৌর কাউন্সিলরের অবৈধ দখলে থাকা ঘরসহ ২০টি স্থাপনা ভেঙ্গে দিল প্রশাসন!

আলফাজ সরকার আকাশ, শ্রীপুর(গাজীপুর) থেকেঃ-  গাজীপুরের শ্রীপুর পৌর কাউন্সিলর মোঃ হাবিবুল্লাহ-র অবৈধ দখলে থাকা সরকারি জমিতে ১০ টি ঘরসহ ২০টি স্থাপনা ভেঙ্গে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

২২ মে শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত পৌর এলাকার বেড়াইদেরচালা গ্রামে চলে এ অবৈধ উচ্ছেদ অভিযান।

অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারজানা নাসরীন। এসময় তার সাথে ছিলেন, পৌর ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা আরিফুল্লাহ ও শ্রীপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আলা উদ্দিনসহ উপজেলা ভূমি অফিসের সকল স্টাফগন।

পৌর ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা আরিফুল্লাহ জানান, পৌর তফসিলের অধীনে ১নং খাস খতিয়ান ভুক্ত সিএস-১০৫৮ ও আরএস- ৬৯৭৩ দাগের ৪৮ শতাংশ জমি সরকারের। সেখানে কিছু জমিতে মসজিদ রয়েছে। আর বাকী ৩২ শতাংশ জমিতে অবৈধ উপায়ে ঘর নির্মাণ করছিলেন পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ হাবিবুল্লাহ ও রত্না নামের এক নারী। কয়েক দিন পূর্বে সরকারি ভাবে নোটিশ দিয়ে অবৈধ স্থাপনা সরানোর জন্য বলা হলেও রাতের অন্ধকারে কাজ চালিয়ে আসছেন তিনি। আজ সকালে তার নির্মিত স্থাপনাসহ সকল অবৈধ স্থাপনা ভেঙ্গে দেয়া হয়েছে। এসময় কিছু মালামাল জব্দ করা হয়।

শ্রীপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারজানা নাসরীন জানান, নোটিশ দেয়ার পরও তিন দিন আগে আমি সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখতে অনুরোধ করেছি। প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও কাজ চালু করায় এসকল অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেয়া হয়েছে। এসময় হাবিবুল্লাহ নামের এক ব্যক্তি কিছু লোককে সাথে নিয়ে সরকারি কাজে বাঁধা ও অশালীন ভাষায় গালিগালাজ করেছে। উর্দ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তাদের বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনী প্রক্রিয়া গ্রহন করা হবে বলেও জানান ওই কর্মকর্তা ।

দীর্ঘদিন ধরে ওই জমি নিজেদের দখলে জানিয়ে পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ হাবিবুল্লাহ মুঠোফোনে জানান, আমার ভগ্নিপতি ওই জমি দলিল মূলে কিনে বসবাস করে আসছে। আমাদের কাগজ আছে যদিও আরএস সরকারের । তবে, আমরা ডিমারগেশন করিনি। পূর্বের কোনরকম নোটিশ না দিয়েই আমাদের কয়েক লাখ টাকার ক্ষতি করে নির্মিত স্থাপনা ভেঙ্গে দিয়েছে।

প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে অশালীন ভাষায় কথা বলার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “আমি কি খাঞ্জা খাই যে,এসিল্যান্ড আর সরকারি লোকদের গালি দিবো”। আমাদের ক্ষতি হয় এমন নিউজ করা যাবেনা। আমি আপনার সাথে দেখা করবো।