লালখান বাজারের মানুষ স্বত:স্ফুর্তভাবে ঘুড়ি মার্কায় প্রতিকেই আমাকে রায় দেবেন-আবুল হাসনাত মোঃ বেলাল

১৪ নং লালখান বাজার ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী আবুল হাসনাত মোঃ বেলাল

জাহাঙ্গীর আলম, বিশেষ প্রতিনিধিঃ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন ২০২১ চট্টগ্রাম মহানগরীর ১৪ নং লালখান বাজার ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী আবুল হাসনাত মোঃ বেলাল। সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের একজন লড়াকু সৈনিক। বিশিষ্ট সমাজ সেবক, সংগঠক আবুল হাসনাত মো. বেলাল লালখান বাজার ১৪ নং ওয়ার্ডে একজন জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব। আসন্ন চসিক নির্বাচনে ঘুড়ি মার্কায় ভোটের লাড়াইতে এখন গণসংযোগে ব্যস্ত।

১৩ জানুয়ারী বুধবার আবুল হাসনাত মোঃ বেলাল একান্ত সাক্ষাৎকারে বলেন, সততা, ন্যায়, নিষ্ঠা ও জনসম্পৃক্ত রাজনীতির পুরস্কার হিসেবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে বিশ্বাস ও আস্থা আমার উপর স্থাপন করেছেন তার স্বার্থকতা তখনই হবে যখন সম্মানিত ভোটারদের প্রত্যক্ষ ভোটে আমি কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়ে দেশ গঠনে তার হাতকে শক্তিশালী করতে পারবো।

বিগত বছরগুলোতে চট্টগ্রাম শহরে লালখন বাজারের যে নেতিবাচক ভাবমূর্তি তৈরী হয়েছে তার একটি ইতিবাচক ভাবমুীর্ত তৈরী করাই হবে আমার প্রধান কাজ।

ঘুড়ি মার্কায় কাউন্সিলর প্রার্থী বেলাল বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে “১০০ দিনের পরিবর্তন” কর্মসূচী ঘোষণার মাধ্যমে লালখান বাজার ওয়ার্ডে জনগণের জন্য ১০০ দিনের কর্মপরিকল্পনা উপহার স্বরূপ বাস্তবায়ন করবো। এই ওয়ার্ডে বসবাসকারী প্রবীণ বুদ্ধিজীবি, ক্রীড়া সঙগঠক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, বিজ্ঞ আলেম ও মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে সমন্বয় সাধন করে শিশু কিশোর, তরুণ, যু্‌বকদের খেলাধূলায় পর্যাপ্ত সুযোাগ সুবিধা নিশ্চিত করার পাশাপাশি বিষয় ভিত্তিক সৃজনশীল প্রতিযোগিতা, জ্ঞান-বিজ্ঞান, সাংস্কৃতিক, ধর্মীয় চর্চাসহ নানামুখী শিক্ষনীয় কার্যক্রম আয়োজনের মাধ্যমে একটি বুদ্ধিবৃত্তিক সমাজব্যবস্থা গঠন করবো।

তিনি বলেন, শত বছরের পুরনো সহস্রাধিক লোকের বসতি মতিঝর্ণার দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মাঝে উচ্ছেদ আতংক, বসতভিটা হারানোর যে আশঙ্কা ও উৎকণ্ঠা তৈরী হয়েছে তা নিরসনে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন ও সরকারের সাথে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে মতিঝর্ণাবাসীর স্বার্থ রক্ষায় কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করবো।

তিনি বলেন, আল্লাহ যদি আমাকে মানুষের দোয়া-ভালবাসায় ব্যালটের রায় প্রাপ্তি হই তবে জরাজীর্ণ ওয়ার্ড কার্যালয় ভেঙ্গে একটি আধুনিক, নান্দনিক, ওয়ার্ড কার্যালয় নির্মাণের উদ্যোগ নিব। যেখানে একটি লাইব্রেরী, বিনামূল্যে চিকিৎসা প্রদান, অডিটরিয়ামসহ অন্যান্য নাগরিক সুযোগ-সুবিধা বিদ্যমান থাকবে। যানজজট মুক্ত, পরিচ্ছন্ন ও দৃষ্টিনন্দন সচল, মনোরম পরিবেশে লালখান বাজার গড়ে তুলবো।

ভোটারদের লক্ষ্য করে তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগ গণমানুষের দল। গণমানুষের কল্যানই আওয়ামী লীগের রাজনীতি। তাই আমি ভোটারদের কাছে দোয়া চাই। বঙ্গবন্ধু কন্যা আমাকে আপনাদের সেবার দায়িত্ব দিতে চান।

তিনি আরো বলেন, আমি সম্মানিত এলাকাবাসী ও ভোটারদের কাছে আমার জবাব দিহীতা নিশ্চিত করতে চাই। সমাজের জন্য যা কিছু ভালো, কল্যাণকর তার বাস্তবায়ন ও যা কিছু খারাপ তা বর্জন করে জনমনে স্বস্তি ফিরিয়ে আনাসহ রাজনীতিতে প্রতিহিংসার বদলে প্রতিযোগীতা ও সৌহার্দ্যমূলক পরিবেশ সৃষ্টির মাধ্যমে আগামীতে সবার জন্য একটি নিরাপদ লালখান বাজার গড়ার প্রত্যয়ে আমি সম্মানিত ভোটারদের মূল্যবান রায় ও দোয়া প্রত্যাশী।