রিয়াল-বার্সা-জুভেন্টাসের বিপক্ষে আইনি ব্যবস্থা শুরু

ইউরোপিয়ান সুপার লিগ চালু রাখার সিদ্বান্তে অনড় থাকায় ইউরোপের শীর্ষ তিন ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা ও জুভেন্টাসের বিপক্ষে আইনি ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে ইউরোপিয়ান ফুটবলের নিয়ন্ত্রন সংস্থা উয়েফা। রিয়াল-বার্সা ও জুভেন্টাসের বিপক্ষে এবার শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ এনেছে উয়েফা। শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ আনার আগেই জানানো হয়েছিলো, রিয়াল-বার্সেলোনা ও জুভেন্টাসেরকে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নিষিদ্ধ করা হবে। তাই ইতোমধ্যে এই তিন ক্লাবের বিপক্ষে শুরু হয়েছে ডিসিপ্লিনারি অ্যাকশন। উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সাথে টেক্কা দিতে গত মাসে হঠাৎ করেই আবির্ভুত হয় সুপার লিগ। লিগটি চালু করতে মূখ্য ভূমিকা ছিলো রিয়াল-বার্সেলোনা ও জুভেন্টাসের। তাদের সাথে ইউরোপের আরও ৯টি ক্লাব, অর্থাৎ মোট ১২টি শীর্ষ ক্লাব যোগ দেওয়ার ঘোষণা দেয়। এরপরই ফুটবল বিশ্বে শুরু হয় আলোচনা সমালোচনার ঝড়। পরবর্তীতে নয়টি ক্লাব ইংল্যান্ডের ম্যানচেষ্টার ইউনাইটেড-লিভারপুল-ম্যানচেষ্টার সিটি-চেলসি-টটেনহ্যাম হটস্পার-আর্সেনাল, ইতালির এসি মিলান- ইন্টার মিলান ও স্পেনের অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ নিজেদের সিদ্ধান্ত থেকে ফিরে আসে। সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার পর উয়েফার কাছে ¯্রফে ক্ষমা চাওয়ায় পার পেয়ে যায় ৯টি ক্লাব। কিন্তু এখনও সরে যায়নি বাকি তিন ক্লাব- রিয়াল, বার্সা এবং জুভেন্টাস। তাই তিন ক্লাবের বিপক্ষে শৃঙ্খলা ভঙ্গের গুরুতর অভিযোগ এনেছে উয়েফা। উয়েফার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘সুপার লিগ নিয়ে তদন্ত শেষে শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা ও জুভেন্টাসের বিপক্ষে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।’ গত মাসে হুঁশিয়ারির সুরে উয়েফা প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্ডার সেফেরিন বলেছিলেন, ‘যদি সুপার লিগ খেলে তাহলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ খেলতে পারবে না তারা। আর যদি তারা নিজেদের অবস্থানে অনঢ় থাকে, তবে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।’ আইনি ব্যবস্থার পর চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রিয়াল, বার্সেলোনা এবং জুভেন্টাসকে নিষিদ্ধ করা হবে বলে জানিয়েছে উয়েফা।