রাজশাহীর হরিপুর ইউপি ভবন থেকে যুবকের ফাঁস দেয়া মরদেহ উদ্ধার

রাজশাহীর পবা উপজেলার হরিপুর ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের কক্ষ থেকে এক যুবকের ফাঁস নেয়া ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।  নিহতের নাম মোফাজ্জল হোসেন (২৬)। তিনি  তানোর উপজেলার চান্দুড়িয়া ইউনিয়নের যুগলপুর গ্রামের তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে। 

রবিবার ভোরে  গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় মোফাজ্জল হোসেনকে ঝুলতে দেখেন গ্রাম পুলিশ সদস্যরা।

হরিপুর ইউপি চেয়ারম্যান বজলে রেজবী আল হাসান মুঞ্জিল জানান, ওই যুবক আত্মহত্যা করেছেন। মোফাজ্জল হোসেন হরিপুর ইউনিয়নের নলপুকুর গ্রামে ১০-১২ দিন আগে বিয়ে করেছেন। পারিবারিকভাবেই তার বিয়ে দেওয়া হয়েছে। পেশায় সে একজন ভ্যানচালক।

তিনি আরও জানান, তার স্ত্রী আর সংসার করতে চাচ্ছিলেন না। বাবার বাড়ি ফিরে যান, দুই দিন আগে মোফাজ্জল তাকে আবারও ফিরিয়ে নিয়ে আসেন। গতকাল শনিবার মদ্যপ অবস্থায় মোফাজ্জল দেখতে পেয়ে  স্থানীয় লোকজন তাকে চেয়ারম্যানের কাছে রেখে যান। রবিবার দুইপক্ষের লোকজনদের নিয়ে তাদের দাম্পত্য কলহের বিষয়ে বৈঠক বসার কথা ছিল। এজন্য রাতে মোফাজ্জল হোসেনকে ইউপি ভবনের একটি কক্ষেই রাখা হয়।

চেয়ারম্যান আরও জানান, ভোরে দায়িত্বরত গ্রাম পুলিশ জানালা দিয়ে মোফাজ্জলের ঝুলন্ত মরদেহ দেখে তাকে খবর দেন। পরে তিনি বিষয়টি থানায় অবহিত করেন। এরপর ঘটনাস্থলে পুলিশ আসে।

রাজশাহীর দামকুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল ইসলাম বলেন,  মোফাজ্জল গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে তার মরদেহের ময়না তদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। রিপোর্ট হাতে এলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। নিহতের পরিবার এ বিষয়ে হত্যা মামলা দিলেও নেয়া হবে।