ভুয়া শিক্ষা সনদঃ চট্টগ্রাম কাস্টমস ৩ সিএন্ডএফ এজেন্টের লাইসেন্স বাতিল

জাহাঙ্গীর আলম চট্টগ্রাম
ভূয়া শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ দাখিল করে লাইসেন্স গ্রহণের অভিযোগে ৩ সিএন্ডএফ এজেন্টসের লাইসেন্স বাতিল করেছে চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউস কর্তৃপক্ষ। একই সাথে প্রতিষ্ঠানগুলোকে ২ লাখ টাকা করে জরিমানাও করেছে কাস্টমস।

লাইসেন্স বাতিল করা প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে- মেসার্স বি লাইন বাংলাদেশ, মেসার্স শরীফ এন্ড সন্স এবং মেসার্স জোবায়ের ট্রেডিং কর্পোরেশন। এর আগেও এই তিনটি প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স স্থগিত করেছিল চট্টগ্রাম কাস্টমস। কাস্টমস এজেন্টস (লাইসেন্সিং) বিধিমালা ২০১৬ অনুযায়ী সিএন্ডএফ লাইসেন্সধারীকে অবশ্যই স্নাতক ডিগ্রিধারী অথবা সমমানের ডিগ্রিধারী হতে হবে।

অথচ ওই তিন লাইসেন্সধারী সিএন্ডএফ এজেন্টস নবায়নের সময় ভুয়া শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ দাখিল করেছিল। চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসের উপ-কমিশনার সুলতান মাহমুদ আমার সময়কে বলেন, লাইসেন্স নবায়নের সময় লাইসেন্সধারী সিএন্ডএফ মালিকেরা যে শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ প্রদান করেন তা যাচাই করা হয়।

বাতিল করা তিন সিএন্ডএফ এজেন্টের দেওয়া শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ সঠিক না পাওয়ায় তাদের লাইসেন্স বাতিল করা হয়েছে। একই সাথে মিথ্যা তথ্য দেওয়ায় তাদের দুই লাখ টাকা করে জরিমানাও করা হয়েছে।

কাস্টমস সুত্রে জানা যায় এদিকে বিভিন্ন অপরাধে আগে যেসব লাইসেন্স বাতিল করা হয়েছে করা হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে- ২০১৬ সাল থেকে ২০২১ সালের বিভিন্ন সময়ে এ ১০ টি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকায় লাইসেন্স কার্যক্রম স্থগিত করে চট্টগ্রাম কাস্টম হাউস। অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় সম্প্রতি এসব প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স বাতিল করে। এরমধ্যে ফেয়ার লজিস্টিকসের ২ লক্ষ টাকার সঞ্চয়পত্র বাজেয়াপ্ত করা হয়। এইচ কে এন্ড কো. (প্রা.) লিমিটেডকে ২০ লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ট্রাইকম ফ্লেইট এন্ড লজিস্টিকসে লিমিটেডেকে ২ লক্ষ টাকা, অন্তরালয়কে ১লক্ষ ২৫ হাজার টাকা, খায়ের ব্রাদার্সকে এক লক্ষ, ফোর স্টার ট্রেডিং কোম্পানিকে ১ লক্ষ, ওরএল ট্রেড (প্রা. লিমিটেডকে ১৫ লক্ষ, বিশস্ত ইন্টারন্যাশনালকে ২০ লক্ষ, সাফা মুন্নি লিমিটেডকে ৭ লক্ষ, বি লাইন বাংলাদেশকে ২ লক্ষ, শরিফ এন্ড সন্সকে ২ লক্ষ এবং জোবায়ের ট্রেডিং কর্পোরেশনকে ২ লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়।