বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে খুনিচক্র চেয়েছিল এদেশের অগ্রগতি ও সমৃদ্ধিকে স্তব্ধ করে দিতে- প্রদীপ চক্রবর্তী

জাহাঙ্গীর আলম

চট্টগ্রাম মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের জাতির পিতার ৪৬তম শাহাদাতবার্ষিকীতে আলোচনা সভা

চট্টগ্রাম মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, চট্টগ্রাম এর চেয়ারম্যান প্রফেসর প্রদীপ চক্রবর্তী বলেছেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে খুনিচক্র চেয়েছিল এদেশের অগ্রগতি ও সমৃদ্ধিকে স্তব্ধ করে দিতে। কিন্তু বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার সাহসী নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ সমৃদ্ধির দ্বারপ্রান্তে।

রোববার (১৫ আগস্ট) সকাল ১০টায় শিক্ষাবোর্ড মিলনায়তনে জাতির পিতার ৪৬তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ইতিহাস বিকৃতি, ষড়যন্ত্র করে বঙ্গবন্ধুকে বাঙালির হৃদয় থেকে মুছে ফেলা যাবে না। কারণ বঙ্গবন্ধু, বাঙালির মুক্তিসংগ্রাম, স্বাধীন বাংলাদেশ একই সূত্রে গাঁথা। বাঙালির হাজার বছরের মুক্তি সংগ্রামের পূর্ণতা এসেছে বঙ্গবন্ধুর হাত ধরে। তাই বঙ্গবন্ধু চিরঞ্জীব বাঙালির হৃদয়ে।

শিক্ষাবোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক ড. বিপ্লব গাঙ্গুলির সভাপতিত্বে ও উপসচিব মোহাম্মদ বেলাল হোসেনের সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য দেন সচিব প্রফেসর আবদুল আলীম, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক নারায়ণ চন্দ্র নাথ, কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর মো. জাহেদুল হক, উপপরিচালক (হিসাব) তাওয়ারিক আলম, উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক নারায়ণ নাথ, সিনিয়র সিস্টেম অ্যানালিস্ট কিবরিয়া মাসুদ খান, সহকারী পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অমল কান্তি বড়ুয়া, সেকশন অফিসার গাজী আবদুল কাইয়ুম, উচ্চমান সহকারী আবু ফজল মোহাম্মদ সেলিম, অফিস সহকারী কাজী রুম্মান উদ্দিন প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু বাঙালির ইতিহাসের আত্মপরিচয়ের প্রতীক। এই মহান নেতার আদর্শ ধারণ করে দেশকে সোনার বাংলায় পরিণত করতে হবে।

এর আগে সকাল ৯টায় শিক্ষাবোর্ড চত্বরে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করা হয়। আলোচনা সভা শেষে বঙ্গবন্ধুসহ ১৫ আগস্ট নিহতদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।