নিজে সুস্থ থাকবো, অন্যকে সুস্থ থাকতে উদ্বুদ্ধ করবো

এনামুল হাসান (স্টাফ রিপোর্টার)

ঢাকার কেরানীগঞ্জে স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে “কেরানীগঞ্জ রানার্স” নামের একটি সংগঠনের আয়োজনে ৫ কিলোমিটার দৌড় চর্চা অনুষ্ঠিত হয়েছে । এ দৌড় চর্চায় বিভিন্ন বয়সের প্রায় দেড় শতাধিক নারী – পুরুষ অংশ নেন।

আজ শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ৬ টায় কেরানীগঞ্জের কলাতিয়া ইউনিয়নের মিঠাপুর পল্লিমঙ্গল খেলার মাঠ এলাকা থেকে এ দৌড় চর্চা শুরু হয়। পরে ৫ কিলোমিটার দৌড়ানো শেষে কেরানীগঞ্জের আকসাইল সেতু এলাকায় দৌড় চর্চা সমাপ্ত হয়। দৌড় চর্চা শুরুর আগে ১০ জন দৌড়বিদের একটি দল নতুনদের দৌড়ের কলাকৌশল শিখিয়ে দেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, দৌড় চর্চায় পুরুষদের পাশাপাশি বেশ কয়েকজন নারীও অংশগ্রহণ করেন। যার মধ্যে আখি আক্তার (৩০) ও তাঁর মেয়ে মুনতাহানা আক্তার (১৩) একসাথে ৫ কিলোমিটার দৌড় সম্পন্ন করেন। এছাড়াও দৌড় চর্চায় অংশগ্রহণ করতে দেখা গেছে ৬৫ বছর বয়সী সাইক্লিস্ট আব্দুল রহিম ও ৫৫ বছর বয়সী হান্নান মিয়াকে। দৌড় চর্চায় অংশগ্রহণকারী প্রত্যেকেই ৫ কিলোমিটারের দৌড় সম্পন্ন করেন।

দৌড় চর্চায় অংশ নেয়া ডা. হাবীবুর রহমান বলেন, বর্তমান বিশ্বে সবচেয়ে বড় ঘাতকব্যাধি হচ্ছে হৃদরোগ এবং স্ট্রোক। যার সঙ্গে উচ্চ রক্তচাপ প্রত্যক্ষভাবে জড়িত। বিশেষজ্ঞদের মতে, অনিয়মিত খাদ্যাভাস, অতিরিক্ত স্থূলতা, কায়িক পরিশ্রম না করা, মদ্যপান এবং তামাক গ্রহণের কারণে দেশের মানুষের মধ্যে উচ্চ রক্তচাপ বেশি দেখা যায়। বিশ্বে প্রতি বছর বহু মানুষের মৃত্যু হয় হৃদরোগে। বাংলাদেশে শতকরা প্রায় ৬৭ ভাগ মানুষের মৃত্যু অসংক্রামক ব্যাধির কারণে হয়ে থাকে। যার মধ্যে ৩০ শতাংশ মৃত্যুর কারণ হৃদরোগ ও স্ট্রোক। দেশে বর্তমানে ২২ শতাংশ অকাল মৃত্যুর কারণ উচ্চ রক্তচাপ।

তিনি আরও বলেন, দেশে বর্তমানে প্রাপ্তবয়স্কদের প্রতি ৫ জনের ১ জন উচ্চ রক্তচাপে আক্রান্ত। তাই শরীরকে সুস্থ রাখতে নিয়মিত দৌড়ানো, হাঁটা এবং ব্যায়াম করা অন্য সব কিছুর চাইতে বেশি উপকারী। দৌড়ালে রক্তসঞ্চালন বৃদ্ধি পায়, যা ফুসফুস ও হৃৎপিণ্ডের ক্ষয়পূরণ করবে। দূর করবে মানসিক চাপ এবং শরীরকে করবে আরও কর্মক্ষম। এতে শরীর থাকবে সুস্থ এবং তারুণ্যময়।

সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা প্রকৌশলী জহির আরিফ বলেন, কেরানীগঞ্জের মানুষের মাঝে দৌড়ের অভ্যাস গড়ে তোলা, দৌড় নিয়ে ভীতি দূর করা এবং দৌড়ের প্রতি উদ্বুদ্ধ করার জন্যই আমাদের এ উদ্যোগ। নিজে সুস্থ থাকবো, অন্যকে সুস্থ থাকতে উদ্বুদ্ধ করবো এই প্রতিপাদ্য সামনে রেখেই আমরা এগিয়ে যেতে চাই। আজকে আমাদের কেরানীগঞ্জ রানার্স এর তৃতীয় দৌড় চর্চার আয়োজন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভবিষ্যতে আরও বড় পরিসরে এ আয়োজন করার পরিকল্পনা রয়েছে। এর জন্য সকলের অংশগ্রহণ প্রয়োজন। দৌড় এবং হাঁটার বিভিন্ন কৌশল, প্রশিক্ষণ ও দৌড়ে উৎসাহিত করতে আমাদের প্রতিটি অনুষ্ঠানে ১০-১৫ জন দৌড়বিদ উপস্থিত থাকেন। তাঁরা নতুন অংশগ্রহণকারীদের দৌড় চর্চার প্রাথমিক কলাকৌশল শিখিয়ে থাকেন। এ দৌড় চর্চায় সব বয়সের মানুষই অংশ নিতে পারবেন।

তিনি আরও বলেন, আমার চাওয়া হচ্ছে কেরানীগঞ্জের প্রতিটি মানুষকে স্বাস্থ্য সচেতনতার মাধ্যমে অকাল মৃত্যু রোধ ও নেশার ছোবল থেকে বাচাঁনো। প্রতিটি মানুষ যদি স্বাস্থ্য সচেতন হয় তবে সে নিজেই উপকৃত হবে। আর তাঁর দ্বারা উপকৃত হবে নিজের পরিবার, সমাজ ও দেশ। নিজে উপকৃত হওয়ার পাশাপাশি অন্যকে স্বাস্থ্য সচেতন হতে উদ্বুদ্ধ করাই আমাদের সংগঠন কেরানীগঞ্জ রানার্স এর মূল লক্ষ্য।

দৌড় চর্চার অনুষ্ঠানটি সফল করতে সার্বিক সহযোগিতা করে ”কলাতিয়া মানবকল্যান সংঘ” নামের একটি সংগঠন। সংঘঠনটির পক্ষ থেকে ইমরান হোসেন তামিম বলেন, আজকের এই দৌড় চর্চা সফল করতে “কেরানীগঞ্জ রানার্স” এর পাশে থেকে সহায়তা করতে পারায় সত্যিই আমরা আনন্দিত।