ধেয়ে আসছে বিশালাকার গ্রহাণু আর চীনা রকেটের অংশবিশেষ

পৃথিবী থেকে সাড়ে ৩ কোটি মাইল দূরে অবস্থান করছে একটি দৈত্যাকৃতির গ্রহাণু। সেটি দ্রুত গতিতে ছুটে আসছে পৃথিবীর দিকে। গ্রহাণুটি আকারে এত বড় আর এত দ্রুত ছুটে আসছে যে একে থামাতে পারমাণবিক বোমাও ব্যর্থ হতে পারে। এদিকে, মহাকাশে পাঠানো একটি চীনা রকেটের অংশবিশেষ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বিপদজনকভাবে পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করছে। আগামী কয়েকদিনের মধ্যে এটি পৃথিবীর যেকোন স্থানে আছড়ে পড়তে পারে। নাসা ও ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সির বিজ্ঞানীরা বলছেন, আগামী ২০শে অক্টোবর পৃথিবীতে আঘাত হানতে পারে ২০২১চউঈ নামের বিশাল এক গ্রহাণু। নানা প্রযুক্তি ব্যবহার করে সপ্তাহখানেকের গবেষণা শেষে বিজ্ঞানীরা বলছেন গ্রহাণুটি আঘাত হানতে পারে জার্মানি, চেক রিপাবলিক ও অস্ট্রিয়ার সীমান্ত এলাকাতে। ১০০ মিটার ব্যাসের বিশালাকার পাথরখ-টি ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ সৃষ্টি করতে পারে, যা ছড়িয়ে পড়তে পারে ৩০০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে। বিজ্ঞানীদের হুঁশিয়ারি, পারমাণবিক বোমা মেরেও বিশালাকার পাথরখ-টিকে সম্পূর্ণ ধ্বংস করা সম্ভব হবে না। হাতে আছে মাত্র ৬ মাস, এর মধ্যেই তাই নতুন কোনো পরিকল্পনা সাজাতে হবে বিজ্ঞানীদের। এদিকে চীনা মহাকাশ প্রকল্প ‘তিয়ানহে স্পেস স্টেশন’ এর জন্য পাঠানো একটি রকেটের ১০০ ফুট লম্বা একটি অংশ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করছে।  এই অংশের ওজন ২১ হাজার কেজি এবং আশঙ্কা করা হচ্ছে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে এটি পৃথিবীর যেকোন স্থানে আছড়ে পড়তে পারে। বিজ্ঞানীরা বলছেন- রকেটের অংশটি সেকেন্ডে ৪ মাইল গতিতে পৃথিবীর দিকে ছুটে আসছে। পৃথিবীর বায়ুম-লে প্রবেশ করে এর বড় একটি অংশ পুড়ে যাবে; তবে তখনও যথেষ্ট ধ্বংসাবশেষ থাকবে যা মারাত্মক হতে পারে। তবে কোথায় এটি অবতরণ করবে তা এখনই অনুমান করা সম্ভব নয়। যদিও অনেক বিজ্ঞানী বলছেন এটি সম্ভবত সমুদ্রে পড়তে পারে। অথবা বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার মত ছোট ছোট টুকরো হয়ে কয়েক মাইল এলাকা জুড়ে ছড়িয়ে পড়তে পারে।