“জুক রেস্টুরেন্টে” মিলল তেলাপোকাসহ স্যুপ ,কি‌চে‌নে খোলা ডাস্ট‌বিন

জাহাঙ্গীর আলম,বিশেষ প্রতিনিধিঃ
চট্টগ্রাম শহরের নামি দামী রেস্টুরেন্টে টাকা দিয়ে আমরা কি খাচ্ছি? রেস্টুরেন্ট গুলো মানুষের পকেটের টাকা হাতিয়ে নিয়ে কি তুলে দিচ্ছে খাবারের প্লেটে? চট্টগ্রাম শহরের নামি দামী রেস্টুরেন্ট, শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত, আলো আধারী লাইটিং এর ধাঁধাঁয় মানুষ যাচাই বাছাই না করে কিনে খাচ্ছে অখাদ্য। আলো আধারীর চাকচিক্যে অনেকটাই বেসামাল ক্রেতা। এমনিই এক নামি দামী রেস্টুরেন্ট নগরীর ওয়াসা মোরে জুক রেস্টুরেন্টে মিলল তেলাপোকাসহ স্যুপ ,কি‌চে‌নে খোলা ডাস্ট‌বিন। যা অনেকটা “বাইরে ফিটফাট ভিতরে সদরঘাট”

আজ ১৬ অক্টোবর(শুক্রবার) এ‌পি‌বিএন, ৯ এর সহায়তায় জাতীয় ভোক্তা অ‌ধিকার সংরক্ষণ অ‌ধিদপ্তর, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যাল‌য়ের উপপ‌রিচালক মোহাম্মদ ফ‌য়েজ উল্যাহ ও জেলা কার্যাল‌য়ের সহকারী প‌রিচালক মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান অ‌ভিযান প‌রিচালনা ক‌রেন। কনজ্যুমারস এ‌সো‌সি‌য়েশ‌ন অব বাংলা‌দে‌শ (ক্যাব), চট্টগ্রা‌মের সভাপ‌তি এস এম না‌জের হোসাইন এই অ‌ভিযা‌নে উপ‌স্থিত থে‌কে ম‌নিট‌রিং টিম‌কে সহ‌যোগিতা ক‌রেন।

জাতীয় ভোক্তা অ‌ধিকার সংরক্ষণ অ‌ধিদপ্তর,চট্টগ্রাম জেলা কার্যাল‌য়ের সহকারী প‌রিচালক মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান জানান, আজকের নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসাবে জ‌নৈক ভোক্তার অ‌ভি‌যোগের প্রেক্ষি‌তে ওয়াসা মো‌ড়ের জুক রেস্টু‌রেন্ট এ অভিযান চালানো হয়। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় স্যুপের ভিতর মরা তেলাপোকা ও কি‌চে‌নের ভিতর খোলা ডাস্ট‌বিন। এছাড়া একই ফ্রিজে কাঁচা ও ম্যারিনেট করা মাছ-মাংস একসা‌থে রাখা আছে। তাই এসব অপরাধ আমলে নিয়ে যথাক্রমে ৩০,০০০ টাকা এবং ১০,০০০ টাকা জ‌রিমানা ক‌রে সতর্ক করা হয়।

জনস্বার্থে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান,জাতীয় ভোক্তা অ‌ধিকার সংরক্ষণ অ‌ধিদপ্তর,চট্টগ্রাম জেলা কার্যাল‌য়ের সহকারী প‌রিচালক মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান