গাজীপুরে বেতনের দাবীতে রক্ত ঝড়লো অক্সফোর্ড শ্রমিকের

মাজহারুল ইসলাম রবিন, জেলা(গাজীপুর)প্রতিনিধিঃ গাজীপুর মহানগরীর সালনা ইফশা গেট সংলগ্ন অক্সফোর্ড শার্ট লিমিটেড এর প্রাপ্ত বেতনের দাবী করতে গিয়ে রক্ত ঝড়লো শ্রমিকের। গতকাল বোধবার সকাল দশটায় ঘটনাটি ঘটে অক্সফোর্ড শার্ট লিমিটেডের প্রদান ফটকের ভিতরে। শ্রমিদের চলতি মাসের বেতন ভাতাদি ও গত ঈদের বকেয়া বোনাস না পাওয়ায় শ্রমিকেরা কর্মবিরতী করে রাস্তায় নেমে আসে। রাসাস্তায় যানজটের সৃষ্টি হলে সদর মেট্রো থানার অফিসার ইনচার্জ আলমগীর হোসেন ঘটনাস্থলে গিয়ে শ্রমিকদের নিয়ন্ত্রনে আনার চেষ্টাকালিন সময় ইন্ডাষ্ট্রিয়াল পুলিশ টিয়ার সেল নিক্ষেপ করলে এলোপাতাড়ি ছুটাছুটিতে চার জন শ্রমিক আহত হয়,এমটাই দাবী করেন অক্সফোর্ডের শ্রমিক ও কর্মকর্তাগন।
এদিকে আহত চার শ্রকিম কোথায় চিকিৎসা নিচ্ছে সে প্রশ্নের জবাবে অক্সফোর্ডের মানব সম্পদ ও কমপ্লায়েন্স সহকারী কর্মকতা শাহিদুল ইসলাম সবুজ বলেন,কত জন আহত বা তাদের চিকিৎসা কোথায় হচ্ছে তা আমার জানা নেই। শ্রমিকদের থেকে প্রাপ্ত সংবাদ অনুযায়ী সালনা সেবা মেডিকেল সেন্টার থেকে চার জন আহত শ্রমিকের তথ্য পাওয়া যায়। সেবা মেডিকেল সেন্টারের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা.মোজাহিদ ফারুকী নিশ্চিত করে বলেন,অক্সফোর্ডের শার্ট লিমিটেডের চার জন শ্রমিককে তিনি চিকিৎসা দিয়েছেন। চার জনের মধ্যে তিনজন নারী ও একজন পুরুষ শ্রমিক। চিকিৎসক আরো জানান,একজন নারী শ্রমিকের মাথায় ১৬টি সেলাই ও অপর আরেক জন নারী শ্রমিকের পায়ে ০৪টি সেলাই লেগেছে। সকলেই চিকিৎসা শেষে বাসায় চলে যায়। আহতরা হলেন,খোশ-নাহার,রুনা,আরিফা ও নোমান। এদিকে আহত খোশ-নাহার (৩২) জানায়,পুলিশ টিয়ার সেল নিক্ষেপ করার পর আমি আঘাত প্রাপ্ত হই। আমার মাথায় আঘাত পাওয়ার পর আমার আর কিছু মনে নেই। সালনা সেবা মেডিকেল এ চিকিৎসা নেওয়ার পর আমি বাসায় ফিরে আসছি। অক্সফোর্ডের শ্রমিকদের মধ্যে আশিক (সুইং অপাঃ),জিয়াউল (সুইং অপাঃ),জায়েদুল ইসলাম (পেকিং সেকশন),রুপালি (সুইং অপাঃ),সেতু (সুইং অপাঃ),আলেমা খাতুন (সুইং অপাঃ) ও শাহিনা আক্তার জানান, আমরা পুলিশের কথা মত রাস্তা ছেড়ে চলে এসেছি তারপরও আমাদের উপর টিয়ার সেল নিক্ষেপ করা হলো।
ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশের পুলিশ পরিদর্শক ইসকেন্দার হাবিব ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জালাল উদ্দিনের নেতৃত্বে পুলিশ ১০ টি টিয়ার সেল নিক্ষেপ করা হয় জানিয়েছেন পুলিশ সুত্রে।