কেন বাদ পড়লেন পরীমনি, জানালেন হৃদি

সরকারি অনুদানে তৈরি ‘১৯৭১: সেই সব দিন’ চলচ্চিত্রের শুটিংয়ে শুরুর চার দিন ঠাকুগাঁওয়ে অংশ নিয়েছিলেন পরীমনি। প্রথম পর্বের পর যখন আবার শুটিং শুরু হয়, তখন দেখা যায়, ছবিটির শুটিংয়ে তিনি আর নেই। বিষয়টি নিয়ে অনেক কানাঘুষা হলেও পরিচালক হৃদি হক আর অভিনেত্রী পরীমনি দুজনের কেউই এ নিয়ে কিছু বলতে চাননি। ছবির শুটিংয়ের ১৫ মাস পর পরিচালকের মুখে আনুষ্ঠানিকভাবে জানা গেল, এই ছবিতে দেখা যাবে না হালের আলোচিত নায়িকা পরীমনিকে। তাঁর জায়গায় যুক্ত হয়েছেন সানজিদা প্রীতি। এখন তাঁকে নিয়েই চলছে সরকারি অনুদানে তৈরি হৃদি হকের প্রথম সিনেমা ‘১৯৭১: সেই সব দিন’-এর শুটিং

বাদ পড়েছেন পরীমনি, তাঁর জায়গায় যুক্ত হয়েছেন সানজিদা প্রীতি

বাদ পড়েছেন পরীমনি, তাঁর জায়গায় যুক্ত হয়েছেন সানজিদা প্রীতি

এই ছবিতে কেন নেই পরীমনি, জানতে চাইলে হৃদি হক বললেন, ‘শুরুতে আমরা চেয়েছিলাম পরীমনিকে নিয়েই ছবিটির শুটিং করতে। শুরুটা করেছিলামও সেভাবেই। কিন্তু প্রথম লটের চার দিন পর আমাদের অন্যভাবে ভাবতে হয়। আমরা যা করেছি, উভয়পক্ষ থেকে পেশাদারি মনোভাব নিয়েই করেছি। একজন অভিনয়শিল্পীকে ছাড়া শুটিং করতে হলে যেভাবে জানানো উচিত, সেভাবেই জানিয়েছি। এমন না, না জানিয়ে পরবর্তী সময়ে কাজ করেছি।’

হৃদি বলেন, ‌‘চলচ্চিত্র একটি অনেক বড় পরিসরের বিষয়। এখানে একটা ভাবনায় সবাই মিলে কাজ করেন। প্রতিটি টিমেরই আলাদা ভাবনা ও কাজের ধরন থাকে। সেই জায়গায় ছন্দপতন ঘটলে ছবিটি ভালো হয় না। প্রতিটি টিমের পেশাদারত্বের ধরনও আলাদা। আমাদের কাছে সুন্দরভাবে ছবিটা বানানোই লক্ষ্য। চলচ্চিত্রের প্রয়োজনেই শেষ পর্যন্ত রাখা সম্ভব হয়নি পরীমনিকে।’

হৃদি হক ও পরীমনি

হৃদি হক ও পরীমনি
পরীমনি ছাড়াও এই ছবিতে এখন আর দেখা যাচ্ছে না এইচবিও চ্যানেলের সিরিয়ালের নায়ক সুদীপ বিশ্বাস দীপকে। একই সময়ে তিনিও অভিনয় শুরু করেছিলেন এই ছবির। এদিকে ‘১৯৭১: সেই সব দিন’–এর মাধ্যমে দীর্ঘ ১৫ বছর পর চলচ্চিত্রে অভিনয় করলেন লিটু আনাম। ইতিমধ্যে কয়েক দিন শুটিংয়ে অংশ নিয়েছেন তিনি
পরীমনি

সরকারি অনুদানের চলচ্চিত্র, মুক্তিযুদ্ধের প্রেক্ষাপটের গল্পসহ আরও কয়েকটি কারণে এই চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে রাজি হয়েছেন তিনি। এই ছবিতে একটি পরিবারের গল্প তুলে ধরা হবে। যেখানে তিন ভাইসহ পরিবারের অন্য সদস্যদের যুদ্ধদিনের নানা দিক উঠে আসবে। তিন ভাইয়ের একজনের চরিত্রে অভিনয় করছেন লিটু আনাম। অন্য দুই ভাইয়ের চরিত্রে ফেরদৌস ও সজল। এই চলচ্চিত্রে আরও অভিনয় করছেন মামুনুর রশীদ, আতাউর রহমান, জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, গীতশ্রী দত্ত, শিল্পী সরকার অপু, সাজু খাদেম, সানজিদা প্রীতি, আনিসুর রহমান মিলন, অর্ষা, মৌসুমী হামিদ প্রমুখ। এই চলচ্চিত্রের গল্পের মূল ভাবনা হৃদি হকের বাবা নাট্যজন ইনামুল হকের। করোনার কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল সিনেমার দৃশ্যধারণ।