কক্সবাজারে ৬৯০.৬৭ বর্গ কিলোমিটার কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের আওতাধীন

শিপন পাল, কক্সবাজার সদর প্রতিনিধিঃ কক্সবাজার জেলার ৬৯০.৬৭ বর্গ কিলোমিটার কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের আওতাভূক্ত এলাকা ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল ১১ ফেব্রুয়ারী গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের উপসচিব লুৎফুন নাহার এর স্বাক্ষরিত এক পত্রের মাধ্যমে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে বলে জানিয়েছেন কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। এর আগে নগর উন্নয়ন অধিদপ্তর কর্তৃক প্রণীত মাস্টার প্ল্যানের অধিক্ষেত্র ছিল ৩২২.৩০ বর্গকিলোমিটার।

জানা গেছে, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের অধিক্ষেত্র পুনঃনির্ধারিত হয়েছে। এই অধিক্ষেত্র শীঘ্রই মাস্টার প্ল্যানের ডিপিপি অনুমোদন করে বর্তমান অবস্থার প্রেক্ষিতে মাস্টার প্ল্যান প্রণয়নের কাজ শুরু করা হবে। ফলে পরিকল্পিত পর্যটন নগরী বাস্তবায়ন করা আরো সহজ হবে বলে জানিয়েছেন কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ।

গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রেরিত ওই পত্রের বরাত দিয়ে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ জানান, জেলার ৮টি উপজেলা থেকে অধিক্ষেত্র নির্ধারণ করে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের এই প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। এতে টেকনাফে ১৪৩.১৫ বর্গকিলোমিটার, উখিয়ায় ৭২.৬১ বর্গকিলোমিটার, রামুতে ৮৩.৪৯ বর্গকিলোমিটার, কক্সবাজার সদরে ১২৫.৫৬ বর্গকিলোমিটার, মহেশখালীর ১৭.৬৮ বর্গকিলোমিটার, কুতুবদিয়ায় ৬৩.০৪ বর্গকিলোমিটার, পেকুয়ায় ৪৩.২৬ বর্গকিলোমিটার, চকরিয়ায় ৭১.৮২ বর্গকিলোমিটার এবং কক্সবাজার সী-বীচ এরিয়ার ৭০.০৬ বর্গকিলোমিটারসহ জেলারব্যাপী ৬৯০.৬৭ বর্গকিলোমিটার কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের আওতাভূক্ত এলাকা হিসেবে চি‎িহ্নত করে অধিক্ষেত্র ঘোষণা করা হয়।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে: কর্নেল (অব:) ফোরকান আহমদ বলেন, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ এর আওতাধীন কক্সবাজার জেলার এলাকাসমূহে ভূমির যৌক্তিক ও আইনসম্মত ব্যবহার নিশ্চিত করে পরিকল্পিত পর্যটন নগরী বাস্তবায়নের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। ইতোপূর্বে কউকের অধিক্ষেত্র ৩২২.৩০ বর্গকিলোমিটার থাকলেও বর্তমানে তা ৬৯০.৬৭ বর্গকিলোমিটার বাড়িয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সদয় অনুমোদনক্রমে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তাঁর ঐকান্তিক স্বপ্ন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের ৬৯০.৬৭ বর্গকিলোমিটার অধিক্ষেত্র নির্ধারণের সদয় সম্মতি জ্ঞাপন করেছেন। কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ তাঁর এ স্বপ্ন বাস্তবায়নের নিমিত্ত নিরলসভাবে কাজ করে যাওয়ার জন্য দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পরিকল্পিত ও আধুনিক কক্সবাজার নির্মাণের স্বপ্ন বাস্তবায়নে তিনি সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তর/সংস্থার সার্বিক সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন।