ঈদ মুহূর্তেও মানুষের পাশে সাবেক এমপি সাবিনা আক্তার তুহিন

নিজস্ব প্রতিবেদক
করোনা দুর্যোগের শুরু থেকেই দরিদ্র ও কর্মহীন মানুষদের পাশে আছেন ঢাকা মহানগর উত্তর যুব মহিলা লীগের সভাপতি, সাবেক এমপি সাবিনা আক্তার তুহিন। প্রায় প্রতিদিনই মিরপুর এলাকার কর্মহীন ও দরিদ্র মানুষদেরকে সহযোগীতা করে যাচ্ছেন তিনি। কখনো খাদ্য সামগ্রী, কখনো নগদ অর্থ প্রদান করেছেন। এবং ঈদ মুহূর্তে খাদ্রসামগ্রী, নগদ অর্থ, ঈদবস্ত্রসহ ঈদ উপহার দিয়ে যাচ্ছেন মানুষদের। শুধু দরিদ্র ও কর্মহীন সাধারণ মানুষ নয়, অসচ্ছল নেতাকর্মীদের পাশেও দাঁড়িয়েছেন তিনি। নগদ অর্থ ও খাদ্রসামগ্রী তুলে দিয়েছেন আওয়ামী যুব মহিলালীগের নেতাকর্মী সহ দলীয় অঙ্গসংগঠনের অসচ্ছল নেতাকর্মীদের। রাত পোহালেই ঈদ। তবুও তার সহযোগীতার কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন তিনি।

করোনা দুর্যোগের আগেও সবসময় সাধারণ মানুষ ও অসচ্ছল নেতাকর্মীদের পাশে ছিলেন তিনি। সেলাই মেশিন বিতরণ, দরিদ্র মানুষকে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দেওয়াসহ বিভিন্ন সময় খাদ্যসামগ্রী, ঈদবস্ত্র বিতরণ করেছেন।

সাবিনা আক্তার তুহিন জানান, দরিদ্র মানুষদের ঘরে খাদ্য সামগ্রী, ঈদবস্ত্র, নগদ অর্থ প্রদান পৌঁছে দেওয়ার পাশাপাশি নিজ দলের কর্মীদের হাতে আমার সাধ্য অনুযায়ী ঈদ উপহার তুলে দিয়েছি। করোনা সংকটের শুরু থেকে সাধ্য অনুযায়ী মিরপুর ও আশপাশের এলাকার মানুষকে সহায়তা করে আসছি। কর্মহীন মানুষগুলো যাতে অর্ধাহারে-অনাহারে কষ্টে না থাকে সে জন্য চেষ্টা করেছি।

সাবিনা আক্তার তুহিন আরও বলেন, আমার এলাকার সাধারণ মানুষ ও আমার রাজপথের সহযোদ্ধারাই আমার পরিবার। আমি আমার সহযোদ্ধাদের মাধ্যমে কর্মীদের জন্য কিছু খাবার দিয়েছি। আমি নিজে যে খাবার আমার বাসার জন্য আনি, তাদেরকেও সেই খাবার দিয়েছি। সাথে ভালোবাসার উপহার হিসেবে সামান্য নগদ অর্থ দিয়েছি। আমি যেমন তাদেরকে উপহার দেই তেমন তারাও তাদের গাছের ফল হোক আর ভালো রান্না করলেও আমার জন্য রাখে। আমি কর্মীদের যেমন বিতরণ করেছি তেমন ঢাকা-১৪ আসন থেকে আসা জনগনকে প্রতিদিন আমার পরিবারের পক্ষ থেকে উপহার দেয়া হচ্ছে । আল্লাহ্ আমাকে জনগনের পাশে থাকার শক্তি দিন।