আল কায়েদার নতুন ঠিকানা ইরান: মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছেন – ইরানের সরকারি কর্তৃপক্ষের মদদে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী নেটওয়ার্ক আল কায়েদার নব উত্থান ঘটছে। খবর বিবিসি। মঙ্গলবার ন্যাশনাল প্রেস ক্লাবে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এ দাবি করেছেন মাইক পম্পেও। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আফগানিস্তানের মতো পাহাড়ি অঞ্চলে লুকিয়ে লুকিয়ে নয়, ইরানে আল কায়েদা প্রস্তুতি নিচ্ছে রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা বলয়ের মধ্যে থেকে। এদিকে, মাইক পম্পেও তার অভিযোগের স্বপক্ষে কয়েকটি প্রমাণও হাজির করেন। যদিও, ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ মাইক পম্পেও’র ওই অভিযোগকে মিথ্যা এবং ভিত্তিহীন বলে এক টুইটার বার্তায় জানিয়েছেন। এর আগে, নভেম্বরে আল কায়েদার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ নেতা আব্দুল্লাহ আহমেদ আব্দুল্লাহ ওরফে আবু মোহাম্মাদ আল মাসরি তেহরানে ইসরায়েলি এজেন্টের হামলায় মারা গেছেন – এমন দাবি প্রত্যাখান করেছিল ইরান। তবে, মঙ্গলবারের ওই সংবাদ সম্মেলন থেকে পম্পেও বলেছেন – তিনি নিশ্চিত করতে পারেন আবু মোহাম্মাদ আল মাসরি আগস্টের সাত তারিখ মারা গেছেন। যদিও এ ব্যাপারে তিনি বিস্তারিত কিছু জানাতে পারেননি। অন্যদিকে, পম্পেও বলেছেন তেহরানে আল কায়েদার শীর্ষ নেতাদের উপস্থিতিই প্রমাণ করে দেশটি আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী নেটওয়ার্কের উত্থানের সুযোগ করে দিচ্ছে। কিন্তু, শিয়া অধ্যুষিত ইরানে কীভাবে সুন্নি অধ্যুষিত আল-কায়েদা বিকশিত হচ্ছে – তা নিয়ে সংশয় থেকেই যাচ্ছে। এ ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের এক ঊর্ধতন নিরাপত্তা কর্মকর্তা বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, ইরানে আল কায়েদার পুণরুত্থানের বিষয়টি নিয়ে রাষ্ট্রীয় শীর্ষ পর্যায় থেকে দায়িত্বশীল মন্তব্য প্রত্যাশা করে জনগণ।