আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস আজ

আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস আজ। রোববার সকালে র‌্যালি নিয়ে রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে দিবসটি উদ্বোধন করবেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন। দেশের সব জেলায় এ দিবসটি পালন করা হবে।

শনিবার মন্ত্রণালয় থেকে এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এবারের প্রতিপাদ্য- বহুভাষায় সাক্ষরতা, উন্নত জীবনের নিশ্চয়তা।

দেশে বর্তমানে সাক্ষরতার হার ৭৩ দশমিক ৯ শতাংশে উন্নীত হয়েছে, যা ২০০৫ সালে ছিল ৫৩ দশমিক ৫ শতাংশ। তবে গত এক বছরে যে হারে সাক্ষরতার হার বৃদ্ধি পেয়েছে, তাতে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন সন্তুষ্ট নন বলে জানান। গত ৫ অক্টোবর এ উপলক্ষে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী এমন কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, আমরা মৌলিক সাক্ষরতার প্রকল্পের মাধ্যমে দেশে ৬৪ জেলায় নির্বাচিত ২৫০টি উপজেলার ১৫ থেকে ৪৫ বছর বয়সী ৪৫ লাখ নিরক্ষরকে সাক্ষরতা জ্ঞান প্রদান করেছি। এরইমধ্যে এ প্রকল্পের মাধ্যমে প্রথম প্রর্যায়ে ১৩৪টি উপজেলায় শিখন কেন্দ্রের মাধ্যমে ২৩ লাখ ৫৯ হাজার ৪৪১ জনকে সাক্ষরতা প্রদান করা হয়েছে।

জাকির হোসেন বলেন, দারিদ্র্য, অনগ্রসরতা, শিশুশ্রম, ভৌগলিক প্রতিবন্ধকতা ইত্যাদিক কারণে এখনো অনেক শিশু বিদ্যালয় বহির্ভূত রয়েছে। উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যবস্থায় এসব শিশুর প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করতে, পিইডিপি-৪ এর আওতায় ৮ থেকে ১৪ বছর বয়সী বিদ্যালয় বহির্ভূত ১০ লাখ শিশুকে উপানুষ্ঠানিক প্রাথমিক শিক্ষা প্রদানের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। বর্তমানে দেশে ৩ কোটি ২৫ লাখ নিরক্ষর মানুষ রয়েছে বলে জানান প্রতিমন্ত্রী।

জানা গেছে, দেশে এসডিজি-৪ এর লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষার আওতায় ১৫ বছরের ঊর্ধ্বে ৫০ লাখ নিরক্ষরকে মৌলিক সাক্ষরতা প্রদান, ১৫ থেকে ৪৫ বছর বয়সী ৫ লাখ যুব ও বয়স্ক নতুন সাক্ষরতার আওতায় আনাসহ দক্ষতা অর্জনে তাদের উন্নয়ন প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। এ জন্য ৫০০টি আইসিটি বেইজড স্থায়ী কমিউিনিটি লার্নিং সেন্টার স্থাপন করা হবে ও ৬৪ জেলায় ৬৪টি জীবিকায়ন দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ কেন্দ্র করা হবে।