আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস উদযাপন

“করোনার কালে ঘরে থাকি, মা ও শিশুকে নিরাপদ রাখি।” – নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস-2020 :স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় । আজ মাতৃত্ব দিবস। 1997 সাল থেকে পালিত হচ্ছে দিবস টি । করোনা পরিস্থিতি তে এবার কোনো আনুষ্ঠানিকতা না থাকলেও “মা ও শিশু” স্বাস্থ্য সেবা নিয়ে সরকারি ভাবে সচেতন থাকার নির্দেশনা রয়েছে । তবুও আমরা কেন যেন গর্ভবতী মায়েদের নিয়ে খুব বেশি এখনো সচেতন হয়ে উঠিনি। পরিসংখ্যান মতে , দেশে প্রতি একলাখ প্রসবে 176 জন মায়ের মৃত্যু হয়। এস ডিজি অর্জন করতে শিশুমৃত্যুর হার প্রতিহাজারে 12 জনে নামিয়ে আনতে হবে । যদিও মাতৃমৃত্যু এবং নবাগত শিশু মৃত্যু শূণ্য হয়ে যাক তা ই কাম্য । স্বাস্থ্য ঝুঁকি কমাতে কিছু বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতেই হবে । যেমন : পরিষ্কার -পরিচ্ছন্নতা, সুষম পুষ্টিকর খাবার , খাওয়া, ঘুম, ব্যায়াম, বিনোদন, প্রার্থনা সহ সুস্থ থাকতে সকল বিষয়ে একটু বাড়তি যত্ন। অর্থাৎ প্রি -ন্যান্টাল কেয়ার( Prenantal care =care during pregnancy ) সম্পর্কে প্রতিটি কিশোরী থেকে নূতন মা সকল কে সচেতন করতে হবে । আর বাংলাদেশের ক্ষেত্রে অবশ্যই অকাল গর্ভপাত ; রাস্তায় পাগলি রা -গর্ভবতী হয়ে যায়, অনেক অল্প বয়সে অনেকেই মা হয়ে যায় -এতে মা ও শিশু স্বাস্থ্য ঝুঁকি বাড়ে ।। আসুন সকলে মায়েদের প্রতি যত্নবান হই।