অভিনেত্রী তারিন জাহান আওয়ামী লীগের সুসময় নয় দুঃসময়ের কর্মী

অভিনেত্রী তারিন জাহান,বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট কেন্দ্রীয় কমিটির,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও অন্যতম মুখপাত্র দুঃসময় দুর্দিনে নেএী ।তারিন জাহান আলমগীর কুমকুম সারাহ বেগম কবরী নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর আদর্শবাস্তবায়ন, জননেএী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার জন্য এই সংগঠনে ১৯৯৪ সালে কাজ শুরু করেন ১৯৯৫ জানুয়ারি মাসে আলমগীর কুমকুম সারাহ বেগম কবরী তারিনকে কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য পদ প্রদান করেন ১৯৯৬ সালেআওয়ামী লীগের প্রার্থীর পক্ষে বিভিন্ন স্থানে নৌকায় ভোট চেয়ে গণসংযোগ করেন ২০০১ বি,এন,পি খমতায় এলে আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীদের ওপর নির্যাতন শুরু করলে ২০০১সালে ৫ অক্টোবর।

বি, এন, পি, জামাতের সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের উদ্যোগে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় সেই সভায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা তিনি পালন করেছেন।১/১১ জন নেত্রী শেখ হাসিনা গ্রেফতার হলে জোটের পক্ষ থেকে তিনি কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেছেন। দুঃসময় দুদিন থেকে এই সংগঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে।বিএনপি-জামাতের অগ্নি সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। আজও আলমগীর কুমকুম, সারাহ বেগম কবরী যে আদর্শ নিয়ে এই সংগঠনটি গঠন করেছিলেন সেই আদর্শ বাস্তবায়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের হাতকে শক্তিশালী করার জন্য পরিশ্রম করে যাচ্ছে।তারিন জাহান বলেন আলমগীর কুমকুম ভাই কবরী আপা, এ,টি,এম,শামসুজ্জামান আঙ্কেল নাই তাদের অনেক ভালবাসা আমি পেয়েছি, সংগঠন করতে এসে।তারা আমাদের মাঝে নেই আমার সংগঠন এগিয়ে নিয়ে যাব। ঝাড় গড় থেকে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের কেন্দ্রীয় কমিটির জন্মগ্রহণ করেছিল একান্ত প্রচেষ্টায় তার সার্বিক সহায়তা প্রদান না করলে এই সংগঠন এত দুর আসতো না। পর্দার অন্তরালে অনেক কাজ করেছেন। যার কারণে দুঃসময় দুঃদিনের থেকে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আজ ৪৫ বছর ধরে বঙ্গবন্ধু আদর্শের মুলধারার সাংস্কৃতিক সংগঠন বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট। ১৯৭৫ এর ১৫ ই আগষ্ট পর আওয়ামী লীগ এর দুর্দিনে দুঃসময়ে এই গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন এই সংগঠন গঠন করে নেতৃত্ব তুলে দিয়েছিলেন আলমগীরকুমকুম ও সারাহবেগম কবরী আপা হাতে।

আজ তারা নেই এই সংগঠন বাঁচাতে সঠিক ইতিহাস তুলে ধরার জন্য প্রচারবিমুখ এই মানুষটি তিনি হলেন চিএনায়ক আলমগীর তিনি এখন বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন আমরা এই সংগঠন আরো শক্তিশালী করব।জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত কে শক্তিশালী করার জন্য কাজ করবো সাংস্কৃতিক কর্মীদের ঐক্য বদ্ধ করে বঙ্গবন্ধু র সোনার বাংলা দেশ গড়া জন্য মানবতার মা জননেত্রী শেখ হাসিনা জন্য কাজ করতে হবে । এটি একটি সাংস্কৃতিক কর্মীদের সংগঠন এই সংগঠনে আদম ব্যবসায়ী,দোকানদার, তদবিরবাজ, চাঁদাবাজ,ধান্দাবাজ দের সংগঠন না,তারা কেউ থাকতে পারবেনা।